শিরোনাম

হেফাজতের মামুনুলকে গ্রেপ্তার দাবি ৬৫ সংগঠনের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জাগরণ ডট নিউজ

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২০ ২০:৩৩

image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপন নিয়ে 'ধৃষ্টতাপূর্ণ' বক্তব্য দেওয়ায় হেফাজতে ইসলামের যুগ্ন-মহাসচিব মামুনুল হকসহ সংশ্নিষ্টদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটিসহ ৬৫টি সংগঠন। পাশাপাশি জামায়াত ও হেফাজত ইসলামীর মৌলবাদী, সাম্প্রদায়িক, সন্ত্রাসী রাজনীতি নিষিদ্ধসহ সাত দফা দাবিও জানানো হয়েছে।

নির্মূল কমিটির উদ্যোগে মঙ্গলবার রাজধানীতে এক বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন থেকে এই দাবি জনানো হয়। বেলা তিনটা থেকে বিকেল পর্যন্ত মৎস ভবন থেকে শুরু করে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, ঢাকা ক্লাব, শাহবাগ মোড় ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ছবির হাট পর্যন্ত এই যৌথ সমাবেশ ও মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে সামাজিক সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবীদের এসব সংগঠন।

ঢাকার পাশাপাশি সারা দেশে জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়েও একই সময়ে সংগঠনগুলোর স্থানীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। সামবেশ শেষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনীতে শ্রদ্ধাও নিবেদন করেন সংগঠনের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

সমাবেশে বক্তরা আরও বলেন, ধর্মের নামে মামুনুল হক গং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আর্দশ ও সম্প্রতি ধংসের পাঁয়তারা করছে। তারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গায় নিক্ষেপ করা হবে-এমন ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে সংবিধান এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার চরম অবমাননা করেছে। অথচ বিশ্বের যে সব ইসলামিক দেশে শরিয়া আইন রয়েছে সেখানেও ভাস্কর্য রয়েছে। তাই তাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সমাবেশে বক্তব্য দেন- মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, দক্ষিণ সিটি করপোরেশেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী, শ্রমিক-কর্মচারি-পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক শাজাহান খান এমপি, ওয়াকার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, জাসদের (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, গ্রাম থিয়েটারের সভাপতি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহবায়ক পীযুষ বন্দোপ্যাধ্যয়, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব ড. কামরুল হাসান খান, সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মূল রঞ্জন গুহ, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজল দেবনাথ, অধ্যাপক উত্তম বড়ূয়া, প্রজন্ম ৭১'র এর সহসভাপতি আসীফ মুনীর তন্ময়।

নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবিরের সঞ্চালনায় সমাবেশের সাতদফা দাবি সম্বলিত ঘোষণাপত্র উপস্থাপন করেন রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশের আহবায়ক সাংবাদিক আবেদ খান। অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, ১ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণা, ধর্মের নামে রাজনীতি বন্ধ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষানীতি, নারীনীতি ও সংস্কৃতিনীতি প্রণয়ন, সংবিধান ও জাতির পিতার বিরুদ্ধে বিষেদগারকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি প্রদান ইত্যাদি।

সমাবেশে মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী বলেন, 'দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ৭২ সালে গাজীপুর চৌরাস্তায় মুক্তিযদ্ধের ভাস্কর্য স্থাপন করেছিলাম, তখন তো কোনো প্রশ্ন উঠেনি। সারাদেশে এমন হাজারও ভাস্কর্য এখনও আছে। তাহলে হঠাৎ করে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে মামুনুলরা কেন,কার স্বার্থে বক্তব্য দিয়েছেন, কীসের লক্ষণ,এটি কারও খামখেয়ালি উক্তি না সুপরিকল্পিত তা ভালোভাবে সরকারকে খতিয়ে দেখতে হবে।'

তিনি আরও বলেন, আমরাও ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসী। দেশের ৯০ ভাগ মানুষ মুসলিম। এই ধর্ম কারও কাছে লীজ দেওয়া হয়নি। ধর্ম রক্ষার দায়িত্ব আমাদেরও। কিন্ত ধর্মের নামে অপরাজনীতি মেনে নেওয়া হবে না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ কোনোদিনও মেনে নেয়নি। ভবিষ্যতেও মেনে নেবে না। এদের প্রতিহত করা হবে। এরাই তারা যারা ধর্মের নামে ১৯৫২ সালে রাষ্ট্রভাষা বাংলা প্রতিষ্ঠার আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন এবং ১৯৭০ সালের নির্বাচন ও একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে যে বক্তব্য (মামুনুল হক) দিয়েছেন তা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। না হলে বাংলার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মানুষ জবাব দেবে। পরিনাম ভালো হবে না। মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য দেওয়ার পরেও এখনও তাদের নিয়ে কিছু বলা হয়নি। এটাই আপনাদের সৌভাগ্য। দৃষ্টান্তমূলক পরিণামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে মামুনুল হকদের বক্তব্যের সমালোচনা করে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, তাদের কথা শুনলে মনে হয় তারাই শুধু ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন! আর আমরা সবাই বিধর্মী।

এ সময় মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যে সব ভাস্কর্য রয়েছে, তা তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, সব দেশেই জাতির স্থপতির ভাস্কর্য রয়েছে, কিন্ত আমরা এখনও আমাদের জাতির স্থপতির ভাস্কর্য স্থাপন করতে পারিনি। এটি আমাদের জন্য লজ্জাজনক। আমরা অবশ্যই 'পদ্মাসেতুর পাড়ে' বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপন করব। তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতেও সবাইকে আহবান জানিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে মামুনুল গংদের বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরি বলেন, সরকারে দৃষ্টিআকর্ষন করছি-আইন ও সংবিধান অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। ধর্মের নামে অপরাজনীতি বন্ধ করতে হবে।

সামাজিক-সাংস্কৃতিক শক্তির দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে মৌলবাদী শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠে এখন প্রগতিশীলতার বিরুদ্ধে হুঙ্কার দিচ্ছে-মন্তব্য করে নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু বলেন, জাতির পিতার ভাস্কর্য ভেঙে নদীতে ছুড়ে ফেলার মতো বক্তব্য দেওয়ার ধৃষ্টতা তারা দেখিয়েছে। তারা কারা? তারা হচ্ছে একাত্তরের পরাজিত সৈনিক, একাত্তরের পরাজিত শত্রু, তাদেরই উত্তরসুরি, একেবারেই তাদের প্রতীকী রূপ।

সভাপতি ও সঞ্চালকের বক্তব্যে শাহরিয়ার কবির বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এবং সংবিধান অবমাননাকারী হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী ও নতুন যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করতে হবে। একইসঙ্গে আমরা সাতদফা দাবিও জানিয়েছি। এই দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

image
image

রিলেটেড নিউজ


জুনে এসএসসি পরীক্ষা, ২৫ শতাংশ কমিয়ে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস

আগামী জুন মাসে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ বিস্তারিত


সবাইকে ভ্যাকসিন দিতেও বছরখানেক লেগে যাবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভ্যাকসিন নিলেই যে করোনা সঙ্গে সঙ্গে দূর হয়ে যাবে, বিষয়টি এমনটা নয়। ভ্যাকসিন দিতেও বিস্তারিত


সবার আগে আমি ভ্যাকসিন নেব : অর্থমন্ত্রী

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ভারত থেকে আনা ভ্যাকসিন সবার আগে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বিস্তারিত


মশা নিধনের নির্দেশ স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর

সবার সমন্বিত উদ্যোগে মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন বিস্তারিত


পি কে হালদারের ‘সহযোগী’ বাবা-মেয়ে গ্রেপ্তার

পি কে হালদারের ‘অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের’ মামলায় তার ব্যক্তিগত আইনজীবী সুকুমার বিস্তারিত


ঢাকায় পৌঁছে গেছে করোনার টিকা

দেশে পৌঁছে গেছে বহুল আকাঙ্ক্ষিত করোনার টিকা। ভারতের মুম্বাই থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বিস্তারিত


দুপুরের মধ্যেই করোনার টিকা আসছে দেশে

বিগত কয়েক মাস ধরে দেশে করোনার টিকার আমদানি নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা চলছিল। অবশেষে সব বিস্তারিত


শপথ নিলেন জো বাইডেন

সত্য হলো জো বাইডেনের স্বপ্ন। যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন তিনি। বিস্তারিত


চীনের মধ্যস্থতায় মার্চে ফিরতে পারে ৪১ হাজার রোহিঙ্গা

বাংলাদেশে অবস্থানরত বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিকদের (রোহিঙ্গা) আগামী মার্চ-এপ্রিলে বিস্তারিত


image
image

নামাজের সময়সূচি

সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত

এক ক্লিকে বিভাগীয় খবর

আবহাওয়া

ক্যালেন্ডার

March 2017
M T W T F S S

চট্টগ্রাম বন্দরের সিডিউল

বিমান বন্দরের সিডিউল


Cities_image
Cities_image

জোয়ার ভাটা

Cities_image